বাংলা


বিউটামিরেট সাইট্রেটঃ

১। ৭.৫মিগ্রা/৫মিলি সিরাপ

২। ৫মিগ্রা/মিলি ড্রপ

৩। ৫০মিগ্রা এসআর ট্যাবলেট


খুব পরিচিত ব্র‍্যান্ড

মিরাকফ (Mirakof)


বিউটামিরেট সাইট্রেট সম্পর্কে যা জানা উচিতঃ


প্রশ্নঃ বিউটামিরেট ব্যবহারে কি কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা যায়।

উত্তরঃ বিউটামিরেট ব্যবহারে মাথা ঘোরা, বমি বমি ভাব, ডায়রিয়া, চুলকানিসহ ত্বকে ফুসকুড়ি দেখা যেতে পারে। এ জাতীয় সমস্যা দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিনন।


প্রশ্নঃ বিউটামিরেট ব্যবহারের সময় কি গাড়ি বা মেশিন চালানো যাবে?

উত্তরঃ বিউটামিরেট ব্যবহারে মাথা ঘোরা, বমি বমি ভাব হতে পারে বলে এটি ব্যবহারের সময় গাড়ি বা মেশিন চালানো যাবে না।


প্রশ্নঃ গর্ভাবস্থায় বা স্তন্যদানকালে কি বিউটামিরেট ব্যবহার করা যাবে?

উত্তরঃ গর্ভাবস্থায় বা স্তন্যদানকালে রিস্ক-বেনেফিট অনুযায়ী চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে ব্যবহার করা উচিৎ। তবে গর্ভাবস্থাযর প্রথম ট্রাইমেস্টারে এটি ব্যবহার করা উচিৎ নয়।


প্রশ্নঃ বিউটামিরেট ও কফ সিরাপ (কফ এক্সপেকটোরেন্ট) কি একসংগে ব্যবহার করা যাবে?

উত্তরঃ বিউটামিরেট ও কফ সিরাপ (কফ এক্সপেকটোরেন্ট) একসংগে ব্যবহার করা যাবে না; কেননা তাতে শ্বাস কষ্ট এবং/বা ফুসফুসের সংক্রমণ হতে পারে।


তথ্যসূত্রঃ https://www.drugs.com/uk/butamirate-7-5mg-5ml-syrup-leaflet.html (February 2017)
Disclaimer: Please note that this information should not be treated as a replacement for physical medical consultation or advice.

গ্লিক্লাজিডঃ

১। ৮০মিগ্রা ট্যাবলেট

২। ৩০মিগ্রা এমআর ট্যাবলেট

৩। ৬০মিগ্রা এমআর ট্যাবলেট


যেসকল পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা যায় -

১। রক্তের গ্লূকোজ কমে যাওয়া (হাইপোগ্লাইসেমিয়া)।

২। পরিপাকতন্ত্রের সমস্যা যেমন- পেট ব্যথা, বমি বমি ভাব, বমি, বদহজম, ডায়রিয়া, কোষ্ঠকাঠিন্য।


এই ক্ষেত্রে কি করা উচিৎ-

১। রক্তের গ্লূকোজ কমে গেলে অল্প পরিমাণ সুগার গ্রহণ করা উচিৎ। তীব্রতার ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন অথবা হাসপাতালের শরণাপ্নন হোন।

২। রক্তের গ্লূকোজ যেন কমে না যায় সেজন্য যথাসময়ে পরিমাণমত শর্করা জাতীয় খাবার খাওয়া উচিৎ।

৩। গর্ভাবস্থায় বা স্তন্যদানকালে এটি ব্যাবহার করা উচিৎ নয়।


তথ্যসূত্রঃ Prescribing Information of Diamicron (www.medicines.org.uk/emc, 02/02/201)
Disclaimer: Please note that this information should not be treated as a replacement for physical medical consultation or advice.

লিনাগ্লিপটিন

৫ মিগ্রা ট্যাবলেট


পরিচিত ব্র‍্যান্ড

লিজেন্টা (Lijenta)


লিনাগ্লিপটিন বিষয়ে যা জানা উচিতঃ


প্রশ্ন ১. লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে কি প্যানক্রিয়াসের সমস্যা হতে পারে?

উত্তরঃ লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে প্যানক্রিয়াসের সমস্যা (Acute Pancreatitis) হতে পারে। গবষনায় দেখা গেছে, ০.৩% লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারকারীর এ জাতীয় সমস্যা হয়।প্যানক্রিয়াসের সমস্যা (Acute Pancreatitis) সন্দেহ হলে যথাশীঘ্র এটি বন্ধ করে এই সমস্যার যথোপযুক্ত চিকিৎসা নিতে হবে।


প্রশ্ন ২. লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে কি হাইপোগ্লাইসেমিয়া হতে পারে?

উত্তরঃ লিনাগ্লিপটিন ইনসুলিন বা গ্লিক্লাজিড জাতীয় ঔষধের সাথে ব্যবহারে হাইপোগ্লাইসেমিয়া হয়। এই ক্ষেত্রে ইনসুলিন বা ইনসুলিন সেক্রেটাগগ যেমন-গ্লিক্লাজিড জাতীয় ঔষধের মাত্রা কমিয়ে নিতে হবে।

লিনাগ্লিপটিনের সাথে ইনসুলিন বা গ্লিক্লাজিড জাতীয় ঔষধ কিডনি রোগীরা ব্যবহার করলে হাইপোগ্লাইসেমিয়ার ঝুঁকি বেশি দেখা যায়।


প্রশ্ন ৩. লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে কি এলার্জি বা স্কিন র‍্যাশ হতে পারে?

উত্তরঃ যদি ব্যবহারকারী লিনাগ্লিপটিনের প্রতি অতি মাত্রায় সংবেদনশীল হয় তবে এটি ব্যবহারে রোগীর এলার্জিক প্রতিক্রিয়া বা স্কিন র‍্যাশ হতে পারেে।


প্রশ্ন ৪. লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে কি জয়েন্টে ব্যথা হতে পারে?

উত্তরঃ ডিপিপি-৪ জাতীয় ঔষধ (লিনাগ্লিপটিন) ব্যবহারে জয়েন্টে ব্যথা হতে পারে যা ঔষধ গ্রহণ বন্ধ করলে চলে যায়। যে সকল রোগীর জয়েন্টে তীব্র ব্যথা আছে তাদের ক্ষেত্রে সম্ভাব্য ঝুঁকির বিষয়টি বিবচনায় রাখতে হবে।


প্রশ্ন ৫. লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে কি হৃদপিণ্ডের সমস্যা হতে পারে?

উত্তরঃ যে সকল রোগীর হার্ট ফেইলিউর হওয়ার ঝুঁকি আছে যেমন- পূর্বে হার্ট ফেইলিউর হয়েছে বা কিডনির সমস্যা আছে এমন রোগী এবং লিনাগ্লিপটিন দিয়ে চিকিৎসাকালে যাদের হার্ট ফেইলিউরের লক্ষণ প্রকাশ পায় তাদের ক্ষেত্রে রিস্ক-বেনেফিট চিন্তা করে ব্যবহার করতে হবে। যদি লিনাগ্লিপটিন দিয়ে চিকিৎসাকালে হার্ট ফেইলিউরের লক্ষণ প্রকাশ পায় তবে লিনাগ্লিপটিন তৎক্ষণাৎ বন্ধ করে হার্ট ফেইলিউরের চিকিৎসা দিতে হবে।


প্রশ্ন ৬. হৃদপিণ্ডের সমস্যা থাকলে কি লিনাগ্লিপটিন ব্যবহার করা যাবে?

উত্তরঃ যে সকল রোগীর হার্ট ফেইলিউর হওয়ার ঝুঁকি আছে যেমন- পূর্বে হার্ট ফেইলিউর হয়েছে বা কিডনির সমস্যা আছে এমন রোগী এবং লিনাগ্লিপটিন দিয়ে চিকিৎসাকালে যাদের হার্ট ফেইলিউরের লক্ষণ প্রকাশ পায় তাদের ক্ষেত্রে রিস্ক-বেনিফিট চিন্তা করে ব্যবহার করতে হবে। যদি লিনাগ্লিপটিন দিয়ে চিকিৎসাকালে হার্ট ফেইলিউরের লক্ষণ প্রকাশ পায় তবে লিনাগ্লিপটিন বন্ধ করে হার্ট ফেইলিউরের চিকিৎসা দিতে হবে।


প্রশ্ন ৭. লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে কি বোলাস পেম্ফিগয়েড (স্কিনের একটি বিরল সমস্যা) হতে পারে?

উত্তরঃ লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে ০.২% রোগীর বোলাস পেম্ফিগয়েড (স্কিনের একটি বিরল সমস্যা) হতে পারে। এ জাতীয় সমস্যা দেখা দিলে তৎক্ষণাৎ লিনাগ্লিপটিন বন্ধ করতে হবে এবং যথাযথ চিকিৎসার জন্য ডার্মাটোলোজিস্টের পারমর্শ নিতে হবে।


প্রশ্ন ৮. লিনাগ্লিপটিনের কি কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া আছে?

উত্তরঃ সকল ঔষধের মত লিনাগ্লিপটিনেরও কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা যায়; যেমন- ন্যাসোফ্যারিঞ্জাইটিস, কাশি, ডায়রিয়া।


প্রশ্ন ৯. কিডনির সমস্যা থাকলে কি লিনাগ্লিপটিন ব্যবহার করা যাবে?

উত্তরঃ ব্যবহারে করা যাবে; মাত্রা পরিবর্তনের প্রয়োজন হয় না।


প্রশ্ন ১০. লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে কি কিডনির সমস্যা বাড়তে পারে?

উত্তরঃ গবেষণায় এমন কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।


প্রশ্ন ১১. লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে কি লিভারের সমস্যা বাড়তে পারে?

উত্তরঃ গবেষণায় এমন কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।


প্রশ্ন ১২. লিভারে সমস্যা থাকলে কি লিনাগ্লিপটিন ব্যবহার করা যাবে?

উত্তরঃ ব্যবহারে করা যাবে; মাত্রা পরিবর্তনের প্রয়োজন হয় না।


প্রশ্ন ১৩. গর্ভাবস্থায় কি লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে কি কোন সমস্যা হবে?

উত্তরঃ গর্ভাবস্থায় লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে বাচ্চার কোন ক্ষতি হয় কি না তা অজানা। তাই গর্ভাবস্থায় বা বাচ্চা নেওয়ার প্লানে থাকা অবস্থায় চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া লিনাগ্লিপটিন ব্যবহার করা উচিৎ নয়।


প্রশ্ন ১৪. লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারকালে বাচ্চাকে কি বুকের দুধ খাওয়ানো যাবে?

উত্তরঃ মাতৃদুগ্ধে লিনাগ্লিপটিন মিশ্রিত থাকে কি না তা অজানা। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া মাতৃদুগ্ধদানকালে লিনাগ্লিপটিন ব্যবহার করা উচিৎ নয়।


প্রশ্ন ১৫. বাচ্চাদের ক্ষেত্রে কি লিনাগ্লিপটিন ব্যবহার করা যাবে?

উত্তরঃ বাচ্চাদের ক্ষেত্রে লিনাগ্লিপটিন কার্যকরি ও নিরাপদ কি নে তা এখনো নিশ্চিত নয়। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ব্যবহার করা উচিৎ নয়।


প্রশ্ন ১৬. লিনাগ্লিপটিন সময়মত খেতে ভুল করলে পরবর্তীতে কিভাবে খেতে হবে?

উত্তরঃ লিনাগ্লিপটিন সময়মত খেতে ভুল করলে পরবর্তীতে যখন মনে পড়বে তখনি খেয়ে নিতে হবে। কিন্তু কোন অবস্থাতেই ২ টি ডোজ/ট্যাবলেট এক সংগে খাওয়া যাবে নে।


প্রশ্ন ১৭. লিনাগ্লিপটিন নির্ধারিত পরিমাণের চেয়ে বেশি খেয়ে ফেললে কি কোন সমস্যা আছে?

উত্তরঃ লিনাগ্লিপটিন নির্ধারিত পরিমাণের চেয়ে বেশি খেয়ে ফেললে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে অথবা হাসপাতালে যোগাযোগ করতে হবে।


প্রশ্ন ১৮. লিনাগ্লিপটিন কি খাবারের সাথে খেতে হয়?

উত্তরঃ লিনাগ্লিপটিন খাবারের আগে বা পরে যেকোন অবস্থায়ই খাওয়া যায়।


প্রশ্ন ১৯. লিনাগ্লিপটিনের সাথে কোন কোন ঔষধ খাওয়া যাবে না?

উত্তরঃ রিফামপিন সাথে লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে লিনাগ্লিপটিনের কার্যকারিতা কমে যায়।


প্রশ্ন ২০. লিনাগ্লিপটিন ব্যবহারে সমস্যা হলে কি করা উচিত?

উত্তরঃ দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে অথবা হাসপাতালে যোগাযোগ করতে হবে। এছাড়াও ডিজিডিএ এর ADRM cell- এ রিপোর্ট করতে হবে। ADRM cell-এর ঠিকানাঃ http://dgdagov.info/index.php/adrm/adrm-entry-form


তথ্যসূত্রঃ Prescribing Information of Tradjenta (04/2022)
Disclaimer: Please note that this information should not be treated as a replacement for physical medical consultation or advice.

মন্টিলুকাস্ট সোডিয়াম

১। ৪ মিগ্রা ওডিটি/ওরোডিসপারসিবল ট্যাবলেট

২। ৫ মিগ্রা ওডিটি/ওরোডিসপারসিবল ট্যাবলেট

৩। ১০ মিগ্রা ট্যাবলেট


খুব পরিচিত ব্র‍্যান্ড

মোনাস (Monus)


মন্টিলুকাস্ট সোডিয়াম সম্পর্কে যা জানা উচিতঃ


প্রশ্ন ১. মন্টিলুকাস্ট কি এজমার তীব্র অবস্থা নিরাময়ে ব্যবহার করা যায়?

উত্তরঃ এজমার তীব্র অবস্থা নিরাময়ে মন্টিলুকাস্ট ব্যবহার করা হয় না। তীব্র অবস্থা নিরাময়ে এজমার রেসকিউ মেডিকশন দেওয়া উচিৎ।


প্রশ্ন ১. মন্টিলুকাস্ট কখন খাওয়া সঠিক?

উত্তরঃ মন্টিলুকাস্ট সন্ধ্যায় খাওয়ার জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়।


প্রশ্ন ১. মন্টিলুকাস্ট কি খাবারের সাথে খেতে হয়?

উত্তরঃ মন্টিলুকাস্ট খাবারের আগে বা পরে যেকোন সময় খাওয়া যেতে পারে।


প্রশ্ন ১. এসপিরিন বা NSAIDs এর প্রতি রোগীর এলার্জি থাকলে মন্টিলুকাস্ট কি ব্যবহার করা যাবে?

উত্তরঃ ব্যবহার করা যাবে না।


প্রশ্ন ১. মন্টিলুকাস্ট ব্যবহারে কি কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হতে পারে?

উত্তরঃ মন্টিলুকাস্ট ব্যবহারে ঊর্ধ শ্বাসনালীর সংক্রমণ, জ্বর, মাথা ব্যথা, ফ্যারিঞ্জাইটিস, কাশি, পাট ব্যথা, ডায়রিয়া, মধ্যকর্ণের প্রদাহ, সর্দি, নাক দিয়ে পানি পড়া, সাইনুসাইটিস হতে পারে।


প্রশ্ন ১. মন্টিলুকাস্ট ব্যবহারে কি রোগীর মানসিক স্বাস্থ্যের কোন পরিবর্তন হয়?

উত্তরঃ মন্টিলুকাস্ট ব্যবহারে রোগীর মানসিক স্বাস্থ্যের পরিবর্তন এমনকি আত্মহত্যার চিন্তাভাবনাও রোগীর মধ্যে দেখা যেতে পারে। এ জাতীয় সমস্যা হলে বা সন্দেহ হলে প্রথমে মন্টিলুকাস্ট বন্ধ করতে হবে এবং পরবর্তীতে চিকিৎসক বা হাসপাতালের সাহায্য নিতে হবে।

প্রশ্ন ১. মন্টিলুকাস্ট এর সাথে রোগীর আত্মহত্যার কোন সম্পর্ক আছে?

উত্তরঃ মন্টিলুকাস্ট ব্যবহারে রোগীর মানসিক স্বাস্থ্যের পরিবর্তন এমনকি আত্মহত্যার চিন্তাভাবনাও রোগীর মধ্যে দেখা যেতে পারে। এ জাতীয় সমস্যা হলে বা সন্দেহ হলে প্রথমে মন্টিলুকাস্ট বন্ধ করতে হবে এবং পরবর্তীতে চিকিৎসক বা হাসপাতালের সাহায্য নিতে হবে।


প্রশ্ন ১. মন্টিলুকাস্ট কি বাচ্চাদের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যায়?

উত্তরঃ এজমার ক্ষেত্রে এটি ১ বৎসর বা তার বেশি বয়সের বাচ্চাদের ব্যবহার করার সুপারিশ করা হয়।

এক্সারসাইজ-ইনডিউসড- ব্রঙ্কোকন্সট্রিকশনের ক্ষেত্রে এটি ৬ বৎসর বা তার বেশি বয়সের বাচ্চাদের ব্যবহার করার সুপারিশ করা হয়।

সিজোনাল রাইনাইটিসের ক্ষেত্রে এটি ২ বৎসর বা তার বেশি বয়সের বাচ্চাদের ব্যবহার করার সুপারিশ করা হয়।

পেরিনিয়াল রাইনাইটিসের ক্ষেত্রে এটি ৬ মাস বা তার বেশি বয়সের বাচ্চাদের ব্যবহার করার সুপারিশ করা হয়হয়।


প্রশ্ন ১. গর্ভাবস্থায় কি মন্টিলুকাস্ট ব্যবহার করা যাবে?

উত্তরঃ এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যের উপর ভিত্তি করে গর্ভাবস্থায় ও মাতৃদুগ্ধ দানকালে মন্টিলুকাস্ট ব্যবহারের নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠিত হয় নি। রিস্ক-বেনেফিট চিন্তা করে চিকিৎসক এটি ব্যবহারের পরামর্শ দিতে পারেন।


প্রশ্ন ১. মন্টিলুকাস্ট ব্যবহারকালে কি বাচ্চাকে মাতৃদুগ্ধ পান করানো যাবে?

উত্তরঃ এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যের উপর ভিত্তি করে গর্ভাবস্থায় ও মাতৃদুগ্ধ দানকালে মন্টিলুকাস্ট ব্যবহারের নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠিত হয় নি। রিস্ক-বেনেফিট চিন্তা করে চিকিৎসক এটি ব্যবহারের পরামর্শ দিতে পারেন।


প্রশ্ন ১. বয়স্কদের ক্ষেত্রে মন্টিলুকাস্ট ব্যবহারের কি মাত্রা কমানোর প্রয়োজন হয়?

উত্তরঃ মাত্রা কমানোর প্রয়োজন নেই।


প্রশ্ন ১. কিডনি সমস্যা থাকলে কি মন্টিলুকাস্ট ব্যবহার করা যাবে?

উত্তরঃ মাত্রা কমানোর প্রয়োজন নেই।


প্রশ্ন ১. লিভারের সমস্যা থাকলে কি মন্টিলুকাস্ট ব্যবহার করা যাবে?

উত্তরঃ মাত্রা কমানোর প্রয়োজন নেই।


প্রশ্ন ১. মন্টিলুকাস্ট কি চুষে খাওয়া যায়?

উত্তরঃ চিউয়েবল বা ওরোডিসপার্সিবল ট্যাবলেট চুষে খাওয়া যায়।


প্রশ্ন ১. মন্টিলুকাস্ট কি পানিতে মিশিয়ে খাওয়া যায়?

উত্তরঃ ওর‍্যাল গ্রানুউল পানিতে, বেবি ফর্মুলায়, মাতৃদুগ্ধে , আপেল সসে, আইস ক্রিম বা নরম খাবারের সাথে মিশিয়য়ে খাওয়া যায়। তবে এ মিশ্রন তৌরির ১৫ মিনিটের মধ্যে ব্যবহার করতে হবে।


প্রশ্ন ১. মন্টিলুকাস্ট কি দিনে ২টি মাত্রা (ট্যাবলেট) ব্যবহার করা যাবে?

উত্তরঃ মন্টিলুকাস্ট দিনে ২টি মাত্রা (ট্যাবলেট) ব্যবহার করা যাবে না।


প্রশ্ন ১. মন্টিলুকাস্ট ব্যবহারে কোন সমস্যা হলে কি করতে হবে?

উত্তরঃ দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে অথবা হাসপাতালে যোগাযোগ করতে হবে। এছাড়াও ডিজিডিএ এর ADRM cell- এ রিপোর্ট করতে হবে। ADRM cell-এর ঠিকানাঃ http://dgdagov.info/index.php/adrm/adrm-entry-form


তথ্যসূত্রঃ মূল প্রেসক্রাইবিং ইনফরমেশন (Singulair, 6/2021)
Disclaimer: Please note that this information should not be treated as a replacement for physical medical consultation or advice.